ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং যেভাবে ই-কমার্স কে বড় করতে পারে।

ফেইসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং
Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on skype
Share on linkedin
Share on email

ঠিক এই মুহূর্তে আপনার ই-কমার্স ব্যবসায়টি বড় হবার জন্য যে পর্যায়ে রয়েছে সেখানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি চ্যানেল অথবা অপরচুনিটি হিসেবে ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং আপনার ই-কমার্স কে আরেকটু বড় করতে সাহায্য করবে।

কারণ,

বিজনেস ডাটা প্ল্যাটফর্ম স্টেটিসটা এর জানুয়ারি ২০২০ রিপোর্টে উল্লেখ করেছে, মাসে অন্তত ১বার ফেসবুকে লগইন করা একটিভ ইউজার বাংলাদেশে প্রায় ৩.৪ কোটি।

Facebook Monthly active user in Bangladesh.
image source- statista.com

এবং WhatsApp, Facebook Messenger এবং Instagram মোবাইল ম্যাসেজিং অ্যাপস গুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ মাসিক একটিভ ইউজার রয়েছে। তিনটিই ফেসবুকের মালিকানাধীন।

Messaging App Active User
image source- statista.com

সুতরাং,

আমাদের দেশে অনলাইনের মাধ্যমে কেনাকাটা করা সকল কাস্টমাররাই ফেসবুক এবং ফেসবুক মেসেঞ্জার ব্যবহার করেন।

অপরদিকে অধিকাংশ স্টার্টআপ কিংবা মাঝারি আকারের ই-কমার্স ব্যবসায় গুলোর একমাত্র মার্কেটিং চ্যানেল ফেসবুক।

আর বাংলাদেশের সকল স্থানে মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধার ফলে ক্রেতা এবং বিক্রেতার মাঝে লেনদেন সহজ হয়েছে। একারণে কাস্টমার ফেসবুকের পেইজ হতেই প্রোডাক্ট অর্ডার করে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারছেন।

image source: Yasser Arafat


এখন, একজন কাস্টমার আপনার কাছ হতে ১টি প্রোডাক্ট ক্রয় করলো। এর পরের পদক্ষেপ কী হতে পারে?

অর্ডার কনফার্মেশন করে তাকে ধন্যবাদ জানানো। ডেলিভারি ইনফরমেশন দেয়া এবং প্রোডাক্ট কেমন লেগেছে জানতে চাওয়া। এইত? এগুলো আপনাকে করতেই।

কিন্তু এত কিছুর মধ্যে তার কাছে আরেকটি প্রোডাক্ট প্রোডাক্ট বিক্রয় করতে পারলে কেমন হয়?

অসাধারণ!

একজন কাস্টমার আপনার কোম্পানি হতে ১টি প্রোডাক্ট ক্রয় করলে তিনি আপনার কাছ হতে আরো ১টি প্রোডাক্ট ক্রয় করতে পারে তার সুযোগ থাকে ৬০%।

– মার্কেটিং ম্যাট্রিক্স

আমাদেরই একজন ক্লায়েন্ট আলাদীন ক্লোথিং এখন পর্যন্ত ৭২৪ জন রিটার্ন কাস্টমার আনতে পেরেছেন। যারা ১ বারের বেশি হলেও তার কাছ হতে প্রোডাক্ট ক্রয় করেছেন।

আলাদীন ক্লোথিং আশা করছে, এই বছরের মধ্যেই রিটার্ন কাস্টমারের সংখ্যা ৫০% বাড়বে।

image source: aladdinclothing.com

সুতরাং অসাধারণ সার্ভিস প্রদান করে রিটার্ন কাস্টমার বাড়ানো এবং নতুন কাস্টমারদের কাছে আপনার পণ্য এবং সার্ভিসের কথা তুলে ধরতে ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং আপনাকে সাহায্য করবে।

তাহলে,

ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং কী?

একেবারে পানির মতন সহজ ভাবে বললে, ফেসবুক মেসেঞ্জার কে মার্কেটিং এর একটি চ্যানেল অথবা অংশ হিসেবে ধরে স্পেসিফিক ভাবে এর জন্য প্ল্যানিং করা এবং সে অনুসারে কাজ করা।

ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর ছোট একটি উদাহরণ দেয়ার জন্য আমরা আলাদীন ক্লোথিং কে অনুসরণ করতে পারি।


আসন্ন ছোট একটি ক্যাম্পেইন উপলক্ষে আলাদীন ৩৫৪ জন কাস্টমার কে স্পেশাল ভাবে নির্দিষ্ট কিছু প্রোডাক্টের উপর ডিসকাউন্ট দিতে চায়। এবং এই ডিসকাউন্ট পাবলিক ভাবে দেয়া যাবে না।

এর মানে পেইজ হতে কোন পোস্ট হবে না, এমনকি নতুন কোন কাস্টমারের জন্য এই অফার প্রযোজ্য নয়।

তাই স্পেসিফিক ভাবে এই ৩৫৪ জন কে জানাতে হলে আমাদের ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর সাহায্য নিতে হবে। সকলের কাছে কম সময়ে স্বল্প খরচে পৌছাতে এটাই আমাদের বেস্ট অপশন।

তাহলে,

কীভাবে ফেইসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং করতে হয়?

কীভাবে ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং করতে, এমন বড় আলোচনা শুরুর আগে জেনে নিতে হবে স্বয়ং ফেসবুক হতে মেসেঞ্জার মার্কেটিং করার জন্য কী কী অপশন দিয়েছে।

দুই ক্যাটাগরিতে ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর অপশন এখন পর্যন্ত রয়েছে।

ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং

  • Click to Messenger Ads: পেইজের পোস্টের সাথে মেসেঞ্জার বাটন যুক্ত করে বুস্ট করা। এটা নরমালি ফেসবুকের হোমপেইজে থাকে।
  • Sponsored Message: এখন পর্যন্ত পেইজের সাথে যাদের চ্যাট হয়েছে তাদের জন্য মেসেঞ্জার হোমপেইজে অ্যাড দেখাবে। এছাড়াও কাস্টম করে ফেসবুকের অন্যান্য ইউজারের হোমপেইজে অ্যাড পাঠানো যায়।

ফেসবুকের বিল্ডইন এই অপশগুলো চালু হবার পর থেকেই বাংলাদেশের বড় ই-কমার্স গুলো ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং জোরেশোরেই করেছে।

সুতরাং,

টেকনিক্যাল বিষয় হতে ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং কঠিন কিছু নয়।

কিন্তু শুরুতেই বলে নেয়া ভালো যে, ফেসবুকের বিল্ডইন মার্কেটিং অপশনটি বেসিক্যালি লিডস বা ডাটা সংগ্রহ করতে সাহায্য করে।

তাই, মার্কেটিং শুরু করার পর পরই বেনিফিট পাবার আশা করলে হতাশ হতে হবে। কারণ, লিডস কিংবা ডাটা কালেক্ট করার পর সে ডাটা গুলো হতে সম্ভাব্য কাস্টমার আপনাকেই খুঁজে বের করতে হবে।

পোস্টের সাথে মেসেঞ্জার বাটন বা Click to Messenger Ads

আপনার ফেসবুক হোমপেইজের কোথাও না কোথাও ‘Send Message’ বাটন সহ এমন পোস্ট দেখেছেন। এবং আপনি নিজেও আপনার বিজনেস পেইজের পোস্ট গুলোতে এই বাটন ব্যবহার করেছেন।


কী মনে পড়েছে?

পোস্টে এমন ম্যাসেজ বাটন যুক্ত করলে কী আদৌ এর কোন সুবিধা রয়েছে?

অবশ্যই!

তবে, আপনার পোস্ট গুলোতে ম্যাসেজ বাটনটি কীভাবে ব্যবহার করছেন তার উপর আপনার সুবিধা গুলো আসবে।

যেমন, সরাসরি ফেসবুক হতে কোন পোস্ট বুস্ট করতে গেলে আমাদের ২টি অপশন চয়েজ করতে দিবে।

  1. পোস্টে লাইক, কমেন্ট, রিইয়েক্ট এবং শেয়ার আনার জন্য বুস্ট করা। যাকে বলে, Post Engagements।
  2. যে সকল কাস্টমাররা অন্যান্য পেইজের ম্যাসেজে গিয়ে নক করে থাকে স্পেসিফিক ভাবে তাদের টার্গেট করে পোস্টটি বুস্ট করা।

সাধারণত ছোট এবং মাঝারি আকারের ই-কমার্স গুলো প্রথম অপশনটি বেছে নিয়ে বুস্ট করে। কারণ, পোস্টে লাইক, কমেন্ট, এবং শেয়ার যত আসবে ততই প্রোডাক্ট বিক্রির সম্ভাবনা বাড়বে।

কিন্তু দ্বিতীয় অপশনটিও খুব গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, স্পেসিফিক ভাবে ম্যাসেজ বা দ্বিতীয় অপশনটি বেছে নিয়ে বুস্ট করলে কাস্টমারদের কাছ হতে ম্যাসেজ আসার প্রবণতা অনেক বেশি থাকে।

সুতরাং পেইজের ইনবক্সে কাস্টমাররা যাতে ম্যাসেজ করে তার জন্য বুস্টিং পোস্টে অবজেকটিভ হিসেবে দ্বিতীয় অপশনটি বেছে নিতে হবে।

যেমনটি আলাদীন ক্লোথিং মাত্র ৪ দিনে ২৭২ টি ম্যাসেজ পেয়েছে। প্রিটি নাইস, রাইট?


এত গুলো ম্যাসেজ পেলেই যে আপনার প্রোডাক্ট সেল হবে তার কোন সত্যতা নেই। দেখা যায়, এত গুলো ম্যাসেজের মধ্যে ১/৩ শতাংশ বা এরচেয়ে কম কাস্টোমার প্রোডাক্ট ক্রয় করেছেন।

তবে, বাকি গুলো আপনার ডাটা হিসেবে পরবর্তীতে কাজে লাগবে।

এবং কীভাবে আমরা ডাটা গুলো কাজে লাগাতে পারি তার বিস্তারিত আলোচনা একটু পরেই করবো।

তো, পোস্টের সাথে মেসেঞ্জার বাটন যুক্ত করলে আপনি আরো বেশ কিছু অপশন পাচ্ছেন মেসেঞ্জার কে কাস্টমাইজ করার জন্য।

যেমন, কোন কাস্টমার আপনার পোস্টের ম্যাসেজ বাটনে ক্লিক করার পর কাস্টমারদের কিছু অপশন চয়েজ করতে দিবে। তারা চাইলে অতিরিক্ত ইনফরমেশন জানতে পারবে চ্যাটবটের সাহায্যে।


চ্যাটবট কী?

সহজ ভাবে বললে, আপনার পেইজের ম্যাসেজ বাটনে কাস্টমাররা ক্লিক করার পর ম্যাসেজ বক্সে যে অপশন বা অটোমেটেড চ্যাট দেখতে পায় তাকে চ্যাটবট হিসেবে ধরা হয়।

চ্যাটবটের ভালো একটি উদাহরণ দেখতে পাবেন আপনার বর্তমান চ্যাটবক্সে।

চ্যাটবট উদাহরণ


এমন অটোমেটেড রেসপন্স আপনিও তৈরি করেছেন আপনার পেইজের সেটিংস থেকে। রাইট? এই চ্যাটবটও ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

কিন্তু বুস্টিং পোস্টের সাথে যে অপশন গুলো পাবেন তা প্রতিবার বুস্টিং করার সময় নতুন করে চ্যাটবট কাস্টমাইজ করতে পারবেন। এতে করে আপনি যে প্রোডাক্ট বা যে কারণে বুস্টিং করছেন তার সাথে মিল রেখে চ্যাটবট কাস্টমাইজ বা চ্যাটবট তৈরি করা যায়।

এখানেই শেষ নয়,

কাস্টমররা আপনার কোনো প্রোডাক্টের ছবি থেকে মেসেঞ্জার বাটনে ক্লিক করলে আপনার পেইজের ইনবক্স হতে জানতে পারছেন তিনি কোন প্রোডাক্টের কথা বলছেন।


এবং এ সকল সুবিধা পাওয়া যাবে পোস্ট বুস্ট করার সময় অবজেকটিভ হিসেবে ম্যাসেজ সিলেক্ট করলে।

মেসেঞ্জার হোমপেইজ বা Sponsored Message

পেইজ পোস্টের সাথে ম্যাসেজ বাটন যুক্ত করে বুস্ট দিয়ে সব সময় কাস্টমারের কাছে প্রোডাক্ট বিক্রয় করা সম্ভব নয়। আর প্রোডাক্ট বিক্রয় না করতে পারলে সেই কাস্টমারের সাথে আর চ্যাট করার সম্ভাবনাও নেই।

একারণে কাস্টমারটি আপনার দেয়া কাস্টমার সার্ভিস কিংবা আপনার ব্র্যান্ডের কথা আগামী কিছুদিনের মধ্যেই ভুলে যাবে। এমনকি আপনার সাথে হওয়া চ্যাট গুলোও তার মেসেঞ্জারে অনেক নিচে পরে থাকবে।


কিন্তু কাস্টমার ভুলে গেলেও তার সাথে হওয়া চ্যাট গুলো থেকে কিছু তথ্য তুলে রেখে সে তথ্য দিয়ে কিছুদিন পর শুধুমাত্র তাকে উদ্দেশ্য করে যদি মেসেঞ্জারে মার্কেটিং করতে হয় তাহলে স্পনসরড ম্যাসেজের মাধ্যমে করতে হবে।

কিছুক্ষণ আগে বলেছিলাম, যেসকল কাস্টমাররা পেইজে ম্যাসেজ দিয়েছে কিন্তু আপনার কাছ হতে প্রোডাক্ট ক্রয় করেনি তাদের ডাটা পরবর্তীতে কাজে লাগবে।

ডাটা গুলো ব্যবহার করার সময় এসেছে। কীভাবে?

স্পনসরড ম্যাসেজের মাধ্যমে পেইজের সাথে যে সকল কাস্টমারের চ্যাট হয়েছে তাদের মেসেঞ্জার অ্যাপসের হোমপেইজে আমাদের অ্যাড গুলো দেখাতে পারছেন।

স্পেশাল অফার, ডিসকাউন্ট প্রাইজ এমনকি নতুন প্রোডাক্টের কথাও কাস্টমারদের মেসেঞ্জারে পৌঁছানো সম্ভব।


শুধু তাই নয়, ফেসবুকে পোস্ট বুস্ট করার মতন করে কাস্টম ভাবে আপনার অ্যাড সকলের সাথে শেয়ার করা যাবে।

এতে করে কাস্টমারটি আপনার দেয়া সার্ভিস কিংবা আপনার কোম্পানির কথা মনে রেখে তিনি আবার আপনার কাছ হতে প্রোডাক্ট কিনতে পারেন।

আর একে বলে পার্সোনালাইজড সার্ভিস।

একটি ই-কমার্স পার্সোনালাইজড সার্ভিসের মাধ্যমে একজন কাস্টমারের কাছে তার প্রোডাক্ট বিক্রয় করার সুযোগ থাকে ১৯%।

– Econsultancy

ইতিমধ্যে, বড় কোম্পানিরা স্পেশালি ই-কমার্স গুলো স্পনসরড ম্যাসেজের মাধ্যমে অসাধারণ ভাবে লিডস সংগ্রহ করা থেকে শুরু করে প্রোডাক্ট বিক্রি করছে।

এই স্পনসরড ম্যাসেজ তৈরি করতে হলে আপনাকে ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজারের সাথে পরিচয় থাকতে হবে। কারণ, স্পনসরড ম্যাসেজ শুধুমাত্র ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজার বা অ্যাডস ম্যানেজারের মাধ্যমে তৈরি করতে হয়।

যদি ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজারের সাথে আপনার পরিচয় থাকে তাহলে নতুন একটি অ্যাড তৈরি করুণ। এরপর অবজেকটিভ হিসেবে ম্যাসেজ সিলেক্ট করুণ।

এরপর Message Destination হিসেবে Sponsored Message সিলেক্ট করুণ।


তাই, পোস্টে মেসেঞ্জার বাটন যুক্ত করে লিডস সংগ্রহ করা এবং স্পনসরড ম্যাসেজের মাধ্যমে কাস্টমারের কাছে আবার ফিরে যাওয়া ছোট এবং মাঝারি আকারের ই-কমার্সের জন্য খুব কঠিন কিছু নয়।

এখানেই কী ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং শেষ?

একদমই নয়…

আসলে মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর যে বড় পরিসর তা ফেসবুকের টুলস দিয়ে যাচাই করা সম্ভব নয়। কেননা, ই-কমার্সের জন্য মার্কেটিং অত্যাবশ্যক। আর মার্কেটিং এর চ্যানেল হিসেবে ফেসবুক মেসেঞ্জার একটি অংশ মাত্র।

তাছাড়া, ছোট এবং মাঝারি সাইজের ই-কমার্সের জন্য সব সময় বুস্টিং করে লিডস এবং প্রোডাক্ট বিক্রয় করা সম্ভব নয়।

কোম্পানি বড় হবার জন্য যেমন রিটার্ণ কাস্টমার প্রয়োজন, তেমনই প্রোডাক্ট বিক্রয় করতে হবে অর্গানিক ভাবে।

সফল ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং করতে চাইলে এর জন্য প্রয়োজন প্ল্যানিং। এবং প্ল্যানিং করতে সাহায্য করবে এমন একটি টুলস কিংবা সফটওয়্যার প্রয়োজন।

ফেসবুকের বাইরে টুলসের কথা বলার কারণ হলো, পার্সোনালাইজড সার্ভিসের জন্য ফেসবুকের টুলস এখন পর্যন্ত যথেষ্ট নয়।

এইত কিছুদিন আগে ফেসবুক পেইজের ইনবক্সে কাস্টমারদের ট্যাগ করার অপশন নতুন দিয়েছে। আর ট্যাগ অপশন গুলোও এখন পর্যন্ত ততটা শক্তিশালী না যতটা ফেসবুকের থার্ড পার্টি ইতিমধ্যে অনেক বেশি শক্তিশালী অপশন দিচ্ছে।

source: Gloria Fashion Bangladesh


ফেসবুকে মেসেঞ্জার মার্কেটিং প্রায় সব সময় আপনাকে করতে হবে। নতুন প্রোডাক্টের জন্য, বিশেষ দিন উপলক্ষে বিশেষ মূল্যছাড়ে প্রোডাক্ট বিক্রয় করার জন্য থেকে শুরু করে কাস্টমারদের কে ধন্যবাদ জানাতে হলেও মেসেঞ্জার মার্কেটিং আমাদের করতে হয়।

এ সকল কাজ গুলো কে কম সময়ের মধ্যে গুছিয়ে করতে হলে ফেসবুকের থার্ডপার্টি সফটওয়্যার ManyChat এর কথা সবার প্রথমে বলতে হবে।

ManyChat কী?

মেনিচ্যাট ফেইসবুকের একটি থার্ড পার্টি সফটওয়্যার যা ফেইসবুকের রুলস মেনে চলে ফেইসবুকে মেসেঞ্জার মার্কেটিং করতে সাহায্য করে। পেইজের ফেইসবুক থেকে ডাটা সংগ্রহ করে সে ডাটা গুলো কে ম্যানিচ্যাটের মাধ্যমে ফিল্টার করে পার্সোনালাইজড সার্ভিস প্রদান করা যায়।

আমাদের কোম্পানি, ডিজাইন কারিগর এবং সকল ক্লায়েন্টেদের ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর সল্যুশন হিসেবে মেনিচ্যাট আমাদের অন্যতম একটু টুলস বলা যায়।

মেনিচ্যাটের যেসব অপশন গুলো রয়েছে তাদের মধ্যে Subscribe, Broadcast এবং Live Chat অপশনটি আমার খুবই প্রিয়।

ManyChat ব্যবহার করার সুবিধা

বিশ্বে ইমেইল মার্কেটিং এর জনপ্রিয়তা থাকলেও বাংলাদেশে এর ব্যবহার হাতে গোনা কিছু স্থানে রয়েছে। তাই ই-কমার্সের জন্য ইমেইল মার্কেটিং এর প্রয়োজন নেই বললেই চলে।

তবে, ইমেইল মার্কেটিং এর মতন সাবস্ক্রাইব হবার অপশন আপনার ফেসবুক মেসেঞ্জারে থাকলে কেমন হয়? কাস্টমাররা আপনার পেইজের সাবস্ক্রাইব হলে, সকল সাবস্ক্রাইবারদের একই ম্যাসেজ দেয়ার অপশন থাকলে মন্দ হয় না।

ম্যানিচ্যাট এই ‘সাবস্ক্রাইব’ হবার অপশনটি দিচ্ছে। নাইস…

শুধু সাবস্ক্রাব অপশনই নয়। ম্যানিচ্যাট হতে লাইভ চ্যাট, কোয়ালিটিফুল ট্যাগ অপশন, একই সাথে সকল সাবস্ক্রাইবারদের ম্যাসেজ পাঠানো, কোয়ালিটিফুল চ্যাটবট তৈরি করা যায়।

ফেসবুক পোস্ট, স্পনসরড ম্যাসেজিং এবং প্ল্যানিং করে আলাদীন তার পেইজের ১০,৪৬৭ জন সাবস্ক্রাইবার তৈরি করতে পেরেছে।


এই সকল সাবস্ক্রাইবারদের কে আলাদীন এখন বেশি করে পার্সোনালাইজড সার্ভিসের পাশাপাশি তাদের কে স্পেশাল অফার দিতে পারছেন নিয়মিত। এতে করে আলাদীনের রেভিনিউ বেড়েছে ৮%।

মেসেঞ্জারের মাধ্যমে শুধু প্রোডাক্ট বিক্রয় করাটাই মূল লক্ষ নয়। লাইভ চ্যাট, প্রোডাক্ট রিভিউ, কোম্পানির ফিডব্যাক সব কিছুই হচ্ছে এক স্থান হতে।

কিছুদিন আগের কথা, আলাদীনের নতুন ওয়েবসাইট কাস্টমারদের কাছে কেমন লেগেছে জানতে চেয়ে সবাইকে ম্যাসেজ দেয়া হয়েছে। ২৬৭ জন আমাদের কে ফিডব্যাক দিয়েছেন!


এইত কিছুদিন আগের কথা। পেইজের বড় একটি মাইলস্টোন পার করলে শুধুমাত্র আমাদের পেইজের সাবস্ক্রাইবারদের কে একটি ছোট ডিসকাউন্ট দিয়েছিলাম। এবং আমাদের ম্যাসেজ ওপেন রেট ৯০.১%।


ডিসকাউন্ট পোস্ট ছাড়াও নরমালি আমাদের ওপেন রেট কমপক্ষে ৮৫% থাকে।

কাস্টমারদের কাছে মেসেঞ্জার একটি প্রাইভেট জায়গা। তাই এক ক্লিকের মাধ্যমে সবাইকে ম্যাসেজ পাঠানো গেলেও প্ল্যানিং এবং বুঝে ম্যাসেজ দিতে হয়। কারণ, কাস্টমার আমাদের ম্যাসেজ ওপেন করলেও বর্তমানে আমাদের ম্যাসেজ ক্লিক ১৭%। যা ওপেন রেট হতে অনেক কম।

ফেসবুকের রুলস মেনে না চলে মেসেঞ্জারের সবাইকে ম্যাসেজ পাঠালে ফেসবুক হতে পেইজ ব্যন হবার সম্ভাবনা ১০০%।

শুধু তাই নয়, কোম্পানির ব্র্যান্ডিং কে সামনে রেখে পেইজের জন্য হাইকোয়ালিটিফুল চ্যাটবট তৈরি করা হয়েছে কাস্টমারদের জন্য। যাতে করে কাস্টমার যখন খুশি, যেখানে খুশি মেসেঞ্জারের চ্যাটবটে এসে আলাদীনের নতুন প্রোডাক্ট, অফার এমনকি ব্লগ পোস্ট পড়তে পারছেন।

ম্যানিচ্যাট দিয়ে কীভাবে মেসেঞ্জারে পার্সোনালাইজড চ্যাটবট তৈরি করা যায় তার ছোট একটি উদাহরণ আপনাদের জন্য তৈরি করেছি।


প্রতিদিন অসংখ্য কাস্টমার মেসেঞ্জারের এই চ্যাটবট ব্যবহার করছেন।

এবং জানেন কী, ম্যানিচ্যাট ফ্রি?

ইয়েস, মেনিচ্যাট ফ্রি এবং প্রো দুই ভার্সন রয়েছে। ম্যানিচ্যাটের সব গুলো অপশনই ফ্রি ভার্সনে ব্যবহার করা যাবে। তবে কিছু লিমিটেসন রয়েছে।

ম্যানিচ্যাট কীভাবে পেইজের সাথে কানেক্ট এবং কাস্টমাইজ করতে হয় জানতে চাইলে আমার ব্লগটি পড়তে পারেন।

পরিশেষে বলবো,

ফেসবুক মেসেঞ্জার মার্কেটিং এ বড় করুণ নিজের ই-কমার্স

এখনই সময় ফেসবুকের মেসেঞ্জার মার্কেটিং এর মাধ্যমে নিজের ই-কমার্স কে আরো শক্তিশালী স্থানে নিয়ে যাওয়ার।

শুরুতেই বলেছি, আমাদের দেশের সকল ছোট এবং মাঝারি আকারের ই-কমার্স গুলো প্রতিনিয়ত ফেসবুকের উপর কতটা নির্ভরশীল।

তাই, এই কম্পিটিশনের সময়ে আশাপাশের সকল প্রতিদ্বন্দ্বীদের ভিরে নিজের ই-কমাস কে সফলতার দিকে একধাপ এগিয়ে নিতে মেসেঞ্জার মার্কেটিং আপনার জন্য অত্যাবশ্যক।

Table of Contents

Subscribe to our newsletter

Promise we won’t spam you or used any marketing promotion form our end.